|

কটিয়াদীতে নারী সাংবাদিকের ওপর হামলা

প্রকাশিতঃ ২:৩৪ অপরাহ্ন | নভেম্বর ০২, ২০১৯

কটিয়াদীতে নারী সাংবাদিকের ওপর হামলা

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ কিশোরগঞ্জের কটিয়াদীতে নারী সাংবাদিক মাহমুদা আক্তার মালার (২৫) ওপর হামলা ও তাকে লাঞ্ছিত করার ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মানিকখালী বাজারে ওষুধের দোকানে ওষুধ কিনতে গেলে স্থানীয় কিছু নেশাগ্রস্ত যুবক তাকে কিল ঘুষি মেরে লাঞ্ছিত করে ও অকথ্য ভাষায় গালাগাল করে।

পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে বৃহস্পতিবার রাতে কটিয়াদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়েছে।

সাংবাদিক মাহমুদা আক্তার মালা বাংলাদেশ দৈনিক সন্ধ্যাবাণীর প্রতিনিধি, বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম (বিএমএসএফ) এর মহিলা সম্পাদক, নিরাপদ সড়ক চাই এর কেন্দ্রীয় সদস্য, আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা আইন সহায়তা কেন্দ্র (আসক) ফাউন্ডেশনের মহিলা সম্পাদক এবং উপজেলার মুমুরদিয়া ইউনিয়নের ধনকীপাড়া গ্রামের সাহাদাত হোসেন মিলনের মেয়ে।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার তিনি ঢাকা থেকে জরুরি কাজে কটিয়াদীতে আসেন। কাজ শেষ করে মানিকখালী হয়ে বাড়ি ফেরার পথে প্রয়োজনীয় কিছু ওষুধ নিতে মানিকখালী বাজারের আদম আলীর ওষুধের দোকানে যান। সেখানে অনেক লোকের জটলা দেখে তাদের একজনকে কি হয়েছে কৌতূহলবশত জিজ্ঞাসা করতেই প্রতিউত্তরে কি হয়েছে তা আপনাকে বলতে হবে? বলে চেঁচিয়ে ওঠেন।  এ নিয়ে কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে হাতাহাতি এবং সাংবাদিক মাহমুদাকে কিল ঘুষি মেরে আহত করে।

কটিয়াদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন মাহমুদা জানান, দোকানে জটলা দেখে কি বিষয় জানতে চাওয়ায় তারা আমাকে কিল ঘুষি মারতে থাকে। হামলাকারীরা নেশাগ্রস্ত ছিল বলে মনে হয়েছে।

কটিয়াদী থানার ওসি এম এ জলিল বলেন, এ ব্যাপারে আমার কাছে কোনো অভিযোগ আসেনি। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে জানালে তিনি বলেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

দেখা হয়েছে: 1443
সর্বাধিক পঠিত
ফেইচবুকে আমরা

  • উপদেষ্টা সম্পাদকঃ আফজাল হোসেন হিমেল
  • সম্পাদকঃ আরিফ আহমেদ
  • সহকারী সম্পাদকঃ সৈয়দ তরিকুল্লাহ আশরাফী মোবাইল ০১৯১৬-৯১৭৫৬৪
  • প্রকাশকঃ উবায়দুল্লাহ রুমি মোবাইল ০১৯১৬-২২৩৩৫৬
  • নির্বাহী সম্পাদকঃ মোঃ সবুজ মিয়া মোবাইল ০১৭১৮-৯৭১৩৬০
  • অফিসঃ ১২/২ পশ্চিম রাজারবাগ, বাসাবো, সবুজবাগ, ঢাকা ১২১৪
  • বার্তা বিভাগ মোবাইলঃ ০১৭১৫-৭২৭২৮৮
  • ই-মেইলঃ [email protected]
অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।