|

গঙ্গাচড়ায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতি,পানিবন্দি ১০ হাজার পরিবার

প্রকাশিতঃ ৭:২৯ অপরাহ্ন | জুলাই ১৩, ২০১৯

গঙ্গাচড়ায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতি,পানিবন্দি ১০ হাজার পরিবার

গঙ্গাচড়া (রংপুর) প্রতিনিধিঃ রংপুরের গঙ্গাচড়ায় গত কয়েক ধরে অব্যাহত বৃষ্টি আর উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলে তিস্তার পানি বৃদ্ধি পেয়ে শনিবান বিপদ সীমার ৫০ সেঃ মিঃ ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। খুলে দেওয়া হয়েছে ডালিয়া ব্রিজের সবগুলো সুইচ গেট। বন্যা কবলিত এলাকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সাময়িক বন্ধ ঘোষনা করা হয়েছে।

তিস্তার পানি বিপদ সীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ায় উপজেলার তিস্তা কবলিত ইউনিয়ন গুলোর নি¤œাঞ্চলসহ চর এলাকা তলিয়ে ১০ হাজার পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। বিভিন্ন আবাদী ফসল তলিয়ে গেছে। ভেসে গেছে পুকুর, মৎস খামারে মাছ। বিভিন্ন এলাকার রাস্তা-ঘাট তলিয়ে যাওয়ায় যোগাযোগ বিছন্ন হয়েছে।

হুমকির রয়েছে মসজিদ, মন্দির, বাড়ি-ঘর ও রাস্তা-ঘাট। পানিবন্দি মানুষজন গবাদি পশু, হাস,মুরগী, ছোট ছেলেমেয়ে ও বৃদ্ধজনকে বিপাকে পড়েছে। কেউ বাড়ি-ঘর ছেড়ে আত্বীয়র বাড়িতে আবার কেউ উচু স্থানে আশ্রয় নিয়েছে। এসব মানুষের বিশুদ্ধ পানি ও রান্নাকৃত খাবার, প্রসাব, পায়খানার চরম সমস্যা হয়েছে। অনেকে শুকনো খাবার, আবার কেউ আত্বীয়দের দেওয়া খাবার খাচ্ছে।

পানিবন্দি মানুষগুলো ভেলা বানিয়ে ও ছোট নৌকায় চলাচল করছে। বিভিন্ন ইউনিয়নে পানিবন্দি ৮’শ ৫০ জনের মাঝে চিড়া, মুড়ি, গুড়, দেশলাই, মোমবাতি গত শুক্রবার বিতরণ করা হয়েছে। তবে প্রয়োজনের তুলনায় এগুলো সামান্য। অনেকে এসব ত্রাণ পায়নি।

এদিকে পানিবন্দি মানুষজনকে জরুরী চিকিৎসা সেবা দেওয়ার জন্য গঠন করা হয়েছে মেডিকেল ডিম। সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের মাধ্যমে জানা যায়, কোলকোন্দ ইউনিয়নে পশ্চিম চিলাখাল চর, চিলাখালচর, মটুকপুরচর, খলাইরচর, বিনানিবা চর, সাউদপাড়া বাঁধের ধার, উত্তর কোলকোন্দ চর ও বাঁধের ধার, কুড়িবিশ্বা বাঁধের ধার, মর্নেয়া ইউনিয়নের আলাল চর, আলমার বাজার বাঁধের ধার, নরশিং, তালপট্টি, নীলারপাড়, লক্ষীটারীর বাঘের হাট, টাউরাশের চর, ইশরকুলচর, কলাগাছি চর, কেল্লারপাড় ও বাঁধের ধার, নোহালী ইউনিয়নের চর নোহালী, বাঘডোহরা চর ৭ ও ৮ নং ওর্য়াড, বৈরাতি বাঁধের ধার, মিনার বাজার, আলমবিদিতরের হাজীপাড়া, ব্যাংকপাড়া ও বাঁধের ধার, গঙ্গাচড়া ইউনিয়নের ধামুর, বোল্লার পাড় ও গান্নার পাড় বাঁধের ধার, গজঘন্টা ইউনিয়নের ছালাপাকচর, গাউছুয়ার বাজার, রাজবল্লব বাঁধের চর, রামদেব, কামদেব, বালাটারীসহ চরাঞ্চলেরসহ এ ইউনিয়নগুলোর নি¤œাঞ্চল প্লাবিত হয়ে ১০ হাজার পরিবার পানিবন্দি হয়েছে।

গঙ্গাচড়ায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতি,পানিবন্দি ১০ হাজার পরিবার

পশ্চিম চিলাখাল চরের সহিদার, মমিনুর, ছাদেকুল, সুরজা,মিনুল, জয়নাল, ভোম্বল, নুর ইসলাম, গাজিউর, উত্তর কোলকোন্দ চরের আয়শা, মিনু, নজরুল, মালেক, গোলজার, মেছের, নুর নবী, মন্টুদা জানান, গত দুদিন বাড়িতে পানি উঠলেও তা সামান্য ছিলো, শনিবার ভোর থেকে বাড়িতে পানি বাড়ে। ফলে আমরা পরিবারের লোকজন খুব সমস্যায় পড়েছি। খাবার, গরু-ছাগল ও ছোট ছেলেমেয়ে, বৃদ্ধদের নিয়ে বিপদ আছি।

সাউদ পাড়া বহুমূখী আলিম মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা রোকন-উজ্জামান বলেন, মাদরাসা যাতায়াতের রাস্তা ও মাঠে পানি উঠায় মাদরাসা সাময়িক বন্ধ ঘোষনা করা হয়েছে। কোলকোন্দ ইউপি চেয়ারম্যান সোহরাব আলী রাজু বলেন, তার ইউনিয়নের প্রায় আড়াই হাজার পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। তিনি পানিবন্দি মানুষের সার্বক্ষনিক খোঁজ খবর নিচ্ছেন।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপসহকারী প্রকৌশলী আমিনুর রহমান জানান, গতকাল সকালে তিস্তার পানি বিপদ সীমার ৫০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের তাসলীমা বেগম জানান, পানিবন্দি পরিবারের জন্য ২০ টন চাল, আলু, ডাল, তেল, লবন, স্যালইন ও বিশুদ্ধ ট্যাবলেট বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। বন্যা কবলিত এলাকা তিনি পরিদর্শন করেছেন এবং সার্বক্ষনিক খোঁজ-খবর রাখছেন। মানুষজনের যাতে কোন ধরনের সমস্যা না হয় সেজন্য সব ধরনের প্রস্তুতি প্রশাসনের পক্ষে গ্রহন করা হয়েছে।

দেখা হয়েছে: 245
সর্বাধিক পঠিত
ফেইচবুকে আমরা

  • উপদেষ্টা সম্পাদকঃ আফজাল হোসেন হিমেল
  • সম্পাদকঃ আরিফ আহমেদ
  • সহকারী সম্পাদকঃ সৈয়দ তরিকুল্লাহ আশরাফী মোবাইল ০১৯১৬-৯১৭৫৬৪
  • প্রকাশকঃ উবায়দুল্লাহ রুমি মোবাইল ০১৯১৬-২২৩৩৫৬
  • নির্বাহী সম্পাদকঃ মোঃ সবুজ মিয়া মোবাইল ০১৭১৮-৯৭১৩৬০
  • অফিসঃ ১২/২ পশ্চিম রাজারবাগ, বাসাবো, সবুজবাগ, ঢাকা ১২১৪
  • বার্তা বিভাগ মোবাইলঃ ০১৭১৫-৭২৭২৮৮
  • ই-মেইলঃ [email protected]
অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।