|

মাদ্রাসা ছাত্র হত্যার অভিযোগে পলাতক মাদ্রাসা শিক্ষক আটক

প্রকাশিতঃ ২:২১ অপরাহ্ন | জুন ১২, ২০১৯

মাদ্রাসা ছাত্র হত্যার অভিযোগে পলাতক মাদ্রাসা শিক্ষক আটক

সোহেল রানা, শার্শা প্রতিনিধিঃ যশোরের শার্শায় শাহ পরান (১২) নামে মাদ্রাসা ছাত্র হত্যার ঘটনায় অভিযুক্ত পলাতক মাদ্রাসা শিক্ষক হাফিজুর রহমানকে আটক করেছে শার্শা থানা পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে খুলনা জেলার দিঘলিয়া আরাবিয়া কওমী মাদ্রাসা থেকে তাকে আটক করা হয়।নিহত শাহ পরান উপজেলার কাগজপুকুর গ্রামের শাহাজান আলীর ছেলে।

আটক হাফিজুর যশোরের শার্শা উপজেলার গোগা গাজিপাড়া গ্রামের মুজিবর রহমান মোল্যার ছেলে। সে বেনাপোলের কাগজপুকুর খেদাপাড়া হিফজুল কোরআন মাদ্রাসা ও এতিমখানার শিক্ষক ও মসজিদের ইমাম।

শার্শা থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এম মসিউর রহমান বলেন, ২জুন রোববার সন্ধায় যশোরের শার্শা উপজেলার কাগজপুকুর খেদাপাড়া হিফজুল কোরআন মাদ্রাসা ও এতিমখানার শিক্ষক হাফিজুর রহমানের গ্রামের বাড়ির ঘরের খাটের নিচে থেকে শাহ-পরান নামের এক মাদ্রাসা ছাত্রের অর্ধ গলিত লাশ উদ্ধার করা হয় ।

ঘটনার পর থেকে হাফিজুর রহমান পলাতক ছিল। গোপন সংবাদ পেয়ে মঙ্গলবার রাতে খুলনা জেলার দিঘলিয়া আরাবিয়া কওমী মাদ্রাসা থেকে হাফিজুরকে আটক করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে হত্যার সাথে যুক্ত থাকার কথা স্বীকার করেছে বলে জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

তিনি আরও বলেন, রোজার মধ্যে তারাবি নামাজ শেষে মাদ্রাসায় নিজ কক্ষে ওই শিশুকে হাফিজুর ‘মাথা টিপে’ দেওয়ার কথা বলে ডেকে নিয়ে যায়।পরে জোর পূর্বক তাকে বলাৎকারের চেষ্টায় ব্যার্থ হয়ে পরদিন কৌশলে বুঝিয়ে তাকে নিজ বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে তাকে নির্যাতন করে নির্মমভাবে হত্যা করে লাশ খাটের নিচে লুকিয়ে রেখে আত্নগোপনে যায় ।
আজ বুধবার দুপুরে আটক হাফিজুরকে যশোর আদালতে পাঠানো হয়েছে।

দেখা হয়েছে: 40
সর্বাধিক পঠিত
ফেইচবুকে আমরা

  • উপদেষ্টা সম্পাদকঃ আফজাল হোসেন হিমেল মোবাইল ০১৬১১-৫১৫৩২০
  • সম্পাদকঃ আরিফ আহমেদ
  • সহকারী সম্পাদকঃ সৈয়দ তরিকুল্লাহ আশরাফী মোবাইল ০১৯১৬-৯১৭৫৬৪
  • প্রকাশকঃ উবায়দুল্লাহ রুমি মোবাইল ০১৯১৬-২২৩৩৫৬
  • নির্বাহী সম্পাদকঃ মোঃ সবুজ মিয়া মোবাইল ০১৭১৮-৯৭১৩৬০
  • অফিসঃ ১২/২ পশ্চিম রাজারবাগ, বাসাবো, সবুজবাগ, ঢাকা ১২১৪
  • বার্তা বিভাগ মোবাইলঃ ০১৭১৫-৭২৭২৮৮
  • ই-মেইলঃ aporadhbartamofosal@gmail.com
অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।