|

ময়মনসিংহে ত্রাশ সৃষ্টি করে দোকান দখল, মার্কেট মালিকের নামে মামলা

প্রকাশিতঃ 4:05 pm | March 13, 2019

ময়মনসিংহে ত্রাশ সৃষ্টি করে দোকান দখল, মার্কেট মালিকের নামে মিথ্যা মামলা

স্টাফ রিপোর্টার, ময়মনসিংহঃ ময়মনসিংহ নগরীর সি.কে ঘোষ রোড এলাকায় অবস্থিত হারুন টাওয়ার মার্কেটে প্রকাশ্যে ককটেল ফাটিয়ে ত্রাশ সৃষ্টি করে অবৈধ ভাবে একটি দোকান কোঠা দখল ও লুটপাট করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

পরে নিজেদের দোষ আড়াল করতে উল্টো মার্কেট মালিক রোটারিয়ান গোলাম আম্বিয়া হারুনের নামে দুটি মিথ্যা মামলা দায়ের করেছেন অবৈধ দখলদার আব্দুর রহমান। তাকে সহায়তা করেছেন নগরীর কিছু চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও কতিপয় ব্যবসায়ীরা।

গত ২৩ ফেব্রুয়ারি দুপুরে নগরীর সি.কে ঘোষ রোডে অবস্থিত হারুন টাওয়ার মার্কেটে এই ঘটনায় ঘটে। তবে এ ঘটনায় অবৈধ দখলদার আব্দুর রহমানের বিরুদ্ধে পুলিশ কোন ব্যবস্থায় নেয়নি বলে অভিযোগ করেছেন মার্কেট মালিক, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজ সেবক রোটারিয়ান মো. গোলাম আম্বিয়া হারুন।

অন্য দিকে জানা যায়, দোকানটি দখলের আগে নগরীর সি.কে.ঘোষ রোডে অবস্থিত ওই মার্কেটের সামনে ব্যবসায়ীদের নিয়ে একটি মানববন্ধন করেন অভিযুক্ত আব্দুর রহমান। পরে দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে বেশ কিছু বহিরাগত সন্ত্রাসী নিয়ে মার্কেটের ভেতরে প্রবেশ করেন তিনি। এরপর ধারালো ইলেকট্রিক কাটার মেশিন দিয়ে মার্কেটের ১৭ নম্বর দোকান কোঠার তালা কেটে অবৈধ ভাবে দখলে করে নেন বলে অভিযোগ করেন মার্কেটের মালিক রোটারিয়ান মো. গোলাম আম্বিয়া হারুন।



এ বিষয়ে মার্কেট মালিক ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী হারুন অভিযোগ করে আরও বলেন, আব্দুর রহমান তার ভাড়াটিয়া নন, সে অবৈধ দখলদার, অনুপ্রবেশকারী এবং মার্কেটে বিশৃংখলা সৃষ্টিকারী। তিনি বহিরাগত সন্ত্রাসী ডেকে এনে আমার মার্কেটের ১৭ নং দোকান কোঠা জোড়পূর্বক দখল করেছেন। আমাকে বেকায়দায় ফেলতে এবং আমি যেন তার বিরুদ্ধে কোন আইনি ব্যবস্থা নিতে না পারি সে জন্য আমার নামে উল্টো একটি চুরি ও মারধরের মিথ্যা অভিযোগ এনে থানায় আলাদা দুটি মামলা করেছেন আব্দুর রহমান। বর্তমানে আমি জামিনে আছি।

মার্কেট মালিক হারুন আরও বলেন, এর আগেও আব্দুর রহমান কৌশলে (তার ১৭ নম্বর) দোকান কোঠাটি দখলের জন্য (গত ১০ অক্টোবর ২০১৬ সালে) ময়মনসিংহের সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে দরখাস্ত করলে তিনি (হারুন) জেলা জজ আদালতে আপিল করেন। জেলা জজের এক আদেশে আব্দুর রহমানের সে কৌশলও ভেস্তে যায়।



পরে গত ২৩ ফেব্রুয়ারি প্রকাশ্য দিনের বেলায় জোড়পূর্বক ( হারুনের) দোকান কোঠা দখল করে নেন আব্দুর রহমান। এর আগে ওই এলাকায় কয়েকটি ককটেল বিস্ফোড়নের শব্দ শোনা যায় বলেও দাবী করেন রোটারিয়ান গোলাম আম্বিয়া হারুন।

এদিকে হারুনের নামে মামলা থাকায় ঘটনার পর তিনি প্রতিনিধির মাধ্যমে কোতুয়ারী মডেল থানায় অভিযোগ প্রেরন করলেও পুলিশ তার অভিযোগ আমলে নেয়নি বলেও অভিযোগ করেন এই ব্যবসায়ী।