|

লক্ষ্মীপুরে ১০ ঘন্টার পর অপহৃত শিশু মিনহাজ উদ্ধার

প্রকাশিতঃ ৭:২৮ অপরাহ্ন | অগাস্ট ০৫, ২০১৯

লক্ষ্মীপুরে ১০ ঘন্টার পর অপহৃত শিশু মিনহাজ উদ্ধার

রুবেল হোসেন, লক্ষ্মীপুর: লক্ষ্মীপুরে অপহৃত শিশু মিনহাজকে ১০ ঘন্টা পর হাত-পা বাঁধা ও মুখে লাল কস্টেপ পেছানো অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করেছে ডিবি পুলিশ। সোমবার (৫ আগষ্ট) দুপুর সাড়ে ৩ টার দিকে পৌরসভার (১২ নং ওয়ার্ড) লাহারকান্দি ইউনিয়নের লাহারকান্দি গ্রামের জাফর মুহুরির বাড়ির পিছনের একটি ছোট ডোবার পা থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন পুলিশ।

এর আগে সোমবার দিবাগত গবীর রাতে ঘুমন্ত অবস্থায় শিশুটিকে অপহরণ করে মুক্তিপন হিসেবে ৫ লাখ টাকা দাবী করেছে বলে অভিযোগ করেন পরিবারের লোকজন। অপহৃত শিশু মিনহাজ স্থানীয় রাজমেস্ত্রী মো. মামুন হোসেনের ছেলে।

পরিবার সুত্রে জানা যায়, স্থানীয় এলাহী বক্সের মাঝি বাড়ীর নিজ ঘরে প্রতিদিনের মতো শিশু মিনহাজকে নিয়ে বাবা মামুন ও মা কহিনুর ঘরের দরজা বন্ধ করে ঘুমিয়ে পড়ে। রাত ৩ টার দিকে ঘুম ভাঙ্গলে মা-বাবা দেখেন তাদের শিশুটি পাশে নেই। দো-চালা টিনসেড ঘরের দরজাটিও খোলা। এসময় কহিনুরের ব্যবহৃত মুঠোফোনও পাওয়া যায়নি। বাড়ির চারপাশে খোঁজ-খবর নিয়ে মিনহাজের সন্ধান পায়নি তারা। পরে সকাল ৫টার দিকে চুরি যাওয়া মুঠোফোনে শিশুর বাবা পাশ্ববর্তী একজনের মুঠোফোন থেকে কল করেন।

খবর পেয়ে সকালেই ওই বাড়িতে লক্ষ্মীপুরের পুলিশ সুপার ড. এ এইচ এম কামরুজ্জামান , অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আনোয়ার হোসেন, সদর থানার ওসি আজিজুর রহমান মিয়া ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আনোয়ার হোসেন বলেন,১০ ঘন্টা পর শিশু নিহাজকে উদ্ধার করা হয়েছে। বর্তমানে মিনহাজকে হসপিটালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্ততি চলছে। এখন পযর্ন্ত অপহরণচক্রের কাউকে সনাক্ত করা সম্ভব হয়নি।

দেখা হয়েছে: 194
সর্বাধিক পঠিত
ফেইচবুকে আমরা

  • উপদেষ্টা সম্পাদকঃ আফজাল হোসেন হিমেল
  • সম্পাদকঃ আরিফ আহমেদ
  • সহকারী সম্পাদকঃ সৈয়দ তরিকুল্লাহ আশরাফী মোবাইল ০১৯১৬-৯১৭৫৬৪
  • প্রকাশকঃ উবায়দুল্লাহ রুমি মোবাইল ০১৯১৬-২২৩৩৫৬
  • নির্বাহী সম্পাদকঃ মোঃ সবুজ মিয়া মোবাইল ০১৭১৮-৯৭১৩৬০
  • অফিসঃ ১২/২ পশ্চিম রাজারবাগ, বাসাবো, সবুজবাগ, ঢাকা ১২১৪
  • বার্তা বিভাগ মোবাইলঃ ০১৭১৫-৭২৭২৮৮
  • ই-মেইলঃ [email protected]
অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।