|

গাইবান্ধা জেলা পরিষদের গাছ না কাটতে চেয়ারম্যানসহ প্রকৌশলীকে লিগ্যাল নোটিশ

প্রকাশিতঃ ১০:৪৫ অপরাহ্ন | সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৯

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধা প্রতিনিধি : গাইবান্ধা জেলা পরিষদের ২ হাজার ৪শ’ গাছ না কাটার জন্য দরপত্র প্রত্যাহারে জেলা পরিষদের দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে লিগ্যাল নোটিশ দেয়া হয়েছে। জনস্বার্থে সাংবাদিক হাসিবুর রহমান বিলু ও সিদ্দিক আলম দয়ালের পক্ষে বুধবার লিগ্যাল নোটিশটি প্রদান করেন জেলা জজ কোর্টের অ্যাডভোকেট শাহজাহান এ রাজ্জাক।

সম্প্রতি সংবাদপত্রে প্রকাশিত বিজ্ঞাপন থেকে জানা যায়, গাইবান্ধা জেলার সাত উপজেলার ছোট বড় রাস্তার পাশে জেলা পরিষদ জীবন্ত ও মৃত গাছ গুলো অপ্রয়োজনে বিক্রি করে দেয়ার জন্য দরপত্র আহবান করা হয়েছে। রাস্তা উন্নয়ন বা উন্নয়ন কাজে বাধা হয়ে দাড়াতে পারে এমন গাছ ছাড়াও গাছ গুলো নির্বিচারে কেটে ফেলার নিলাম দরপত্র আহবান করা হয়। লিগ্যাল নোটিশে বলা হয়, শতবর্শী বিভিন্ন জাতের যেমন মেহগনি, রেইনট্রি ছাড়াও অন্যান্য মুল্যবান গাছ কাটার দরপত্র আহবান করা হয়েছে। যা, সামাজিক পরিবেশ দুষন, বনায়ন ও জলবায়ু বিপর্যস্ত হওয়ার অন্যতম কারণ হবে পারে। পরিবেশ দুষনে জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকির মুখে নির্বিচারে গাছ কাটা চরম অন্যায়। এ গাছ কর্তন করা হলে গাইবান্ধা জেলার বিভিন্ন এলাকা বৃক্ষ শূণ্য হয়ে পড়বে। যাহার অনিবার্য্য বিরূপ ফল ভোগ করতে হবে জেলাবাসীকে। তাই কতিপয় স্বার্থান্বেষী মহলের স্বার্থ রক্ষা না করে সামাজিক, প্রাকৃতিক, নৈসর্গিক সৌর্ন্দ্য রক্ষায় সাধারন জনগণের স্বার্থে গাছ বিক্রির দরপত্র প্রত্যাহারের জন্য লিগ্যাল নোটিশ প্রদান করা হলো। অন্যথায় দেশের বরেণ্য সাংবাদিক হাসিবুর রহমান বিলু ও সাংবাদিক সিদ্দিক আলম দয়ালের আবেদনের প্রেক্ষিতে পরিবেশ রক্ষার্থে আপনাদের বিরুদ্ধে আইনী প্রক্রিয়া করা হবে বলে এ মর্মে লিগ্যাল নোটিশ প্রদান করা হয়।

দেখা হয়েছে: 10
সর্বাধিক পঠিত
ফেইচবুকে আমরা

  • উপদেষ্টা সম্পাদকঃ আফজাল হোসেন হিমেল মোবাইল ০১৬১১-৫১৫৩২০
  • সম্পাদকঃ আরিফ আহমেদ
  • সহকারী সম্পাদকঃ সৈয়দ তরিকুল্লাহ আশরাফী মোবাইল ০১৯১৬-৯১৭৫৬৪
  • প্রকাশকঃ উবায়দুল্লাহ রুমি মোবাইল ০১৯১৬-২২৩৩৫৬
  • নির্বাহী সম্পাদকঃ মোঃ সবুজ মিয়া মোবাইল ০১৭১৮-৯৭১৩৬০
  • অফিসঃ ১২/২ পশ্চিম রাজারবাগ, বাসাবো, সবুজবাগ, ঢাকা ১২১৪
  • বার্তা বিভাগ মোবাইলঃ ০১৭১৫-৭২৭২৮৮
  • ই-মেইলঃ aporadhbartamofosal@gmail.com
অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।