|

চিকিৎসক শূন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল বিপাকে রোগীরা (ভিডিও)

প্রকাশিতঃ ৪:৪৩ অপরাহ্ন | জুন ২০, ২০১৮

চিকিৎসক শূন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল বিপাকে রোগীরা

মোঃ মহসিন রেজাঃ

শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ইদুল ফিতর উপলক্ষে বৃহস্পতিবার ১৪ জুনের আগে থেকে ২০ জন বুধবার পর্যন্ত ছুটি কাটাচ্ছেন শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের নিয়মিত চিকিৎসকগণ।

এদিকে রোগীরা দূর-দূরান্ত থেকে এসে চিকিৎসা না পেয়ে ফিরে যাচ্ছেন বলে অভিযোগ করেন ডাক্তারের অপেক্ষমান চিকিৎসা নিতে আসা রোগী ও তাদের স্বজনরা।

অন্যদিকে সদর হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডাঃ আবদুল্লা মুঠো ফোনে প্রতিবেদককে জানান, ডাঃ সাবরিনা, ডাঃ মিজানূর রহমান, ডাঃ বাদশা, ডাঃ নুরুল আমিন এ চার জন রয়েছেন ছুটিতে। এছাড়া আরো বলেন, ডাঃ ইমরানের দুদিনের ছুটি শেষ হলেও এখনো তিনি হাসপাতালে আসেননি। বাকিরা সবাই হাসপাতালেই আছেন।

ডাঃ কাজী শাহ আব্দুল্লা শামীম ছুটিতে আছেন কিনা তাও জানাতে পারেননি সদর হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডাঃ আব্দুল্লা।
সদর হাসপাতালের আর.এম.ও শেখ মোস্তফা খোকন তিনি রয়েছেন মিনিস্টরি প্রোগ্রামে আমেরিকায়।

শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের চিত্র বলছে ভিন্ন কথা বাকি চিকিৎসকগণ ডাঃ শুভ্রদেব সাহা, ডাঃ রেজাউল করিম রেজা, ডাঃ এহসান শাহ্, ডা. আকরাম এলাহীসহ অন্যরা
ছুটিতে নাথাকলেও নেই হাসপাতালে।

শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায় হাসপাতালে ডাক্তারদের চেম্বারে চলছে রংয়ের কাজ আর হাসপাতালে ভিড় করে রয়েছে বিভিন্ন ঔষধ কোম্পানীর দালাল সাহেবরা এতে রোগীরা পড়ছেন বিপাকে তারা একটু বসার জায়গাও পাচ্ছেননা এদের জন্য।

বর্তমানে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের ভার প্রাপ্ত আর.এম.ও ডাক্তার সুমন কুৃমার পোদ্দার রয়েছেন পুরো হাসপাতালের দায়িত্বে তিনি একাই যতদূর সম্ভব সেবা দিয়ে যাচ্ছেন।

দেখা হয়েছে: 308
সর্বাধিক পঠিত
ফেইচবুকে আমরা

  • উপদেষ্টা সম্পাদকঃ আফজাল হোসেন হিমেল মোবাইল ০১৬১১-৫১৫৩২০
  • সম্পাদকঃ আরিফ আহমেদ
  • ভারপ্রাপ্ত সম্পাদকঃ ফয়সাল হাওলাদার মোবাইল ০১৭৩২-৩৭৯৯৮২
  • সহকারী সম্পাদকঃ সৈয়দ তরিকুল্লাহ আশরাফী মোবাইল ০১৯১৬-৯১৭৫৬৪
  • প্রকাশকঃ উবায়দুল্লাহ রুমি মোবাইল ০১৯১৬-২২৩৩৫৬
  • নির্বাহী সম্পাদকঃ মোঃ সবুজ মিয়া মোবাইল ০১৭১৮-৯৭১৩৬০
  • অফিসঃ ১২/২ পশ্চিম রাজারবাগ, বাসাবো, সবুজবাগ, ঢাকা ১২১৪
  • বার্তা বিভাগ মোবাইলঃ ০১৭১৫-৭২৭২৮৮
  • ই-মেইলঃ aporadhbartamofosal@gmail.com
অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।