|

ফেসবুকে ঈদে মিলাদুন্নবী নিয়ে মন্তব্য করায় অধ্যাপককে আইনি নোটিশ

প্রকাশিতঃ ১২:৩০ পূর্বাহ্ণ | ডিসেম্বর ০৫, ২০১৮

এ.এস.লিমন রাজারহাট ( কুড়িগ্রাম)প্রতিনিধিঃ-

কুড়িগ্রামের রাজারহাটে ফেসবুকে রাষ্ট্রীয় ভাবে পালিত পবিত্র ঈদে মিলাদুন নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের অনুষ্ঠানের আপত্তিকর মন্তব্য প্রচার করার অপরাধে রাজারহাট মহিলা কলেজের অধ্যাপক মাওঃ হাবিবুল্লাহ সিদ্দিকীর কটূক্তির পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকা রাজারবাগ দরবার শরীফ এর পক্ষ থেকে আইনি নোটিশ প্রেরন করা হয়েছে।

সূত্রে জানা যায়, রাজারহাট উপজেলার ঘড়িয়াল ডাঙ্গা ইউপির চেতনা মিলেরপাড় এলাকার ও রাজারহাট মহিলা কলেজের অধ্যাপক মাওঃ হাবিবুল্লাহ সিদ্দিকী তার ফেসবুক প্রোফাইলে এক স্ট্যাটাসে বলেন-১২ রবিউল আউয়াল ঈদ নয়, ঈদে মিলাদুন্নবী পালন করা যাবে না। কুরআন ও হাদীসের কোথাও ঈদে-মীলাদ পালন করতে বলা হয়নি। রাসূলে কারীম সা. এর সাহাবায়ে কেরাম বা তাবেয়ীনগন কখনো এটা পালন করেননি। তাই এটা বেদআত ও গোমরাহী।

ঈদে মীলাদুন্নবী হল খৃষ্টানদের বড় দিন, হিন্দুদের জন্মাষ্ঠমী ও বৌদ্ধদের বৌদ্ধ-পূর্ণিমার অনুকরণ। ধর্মীয় বিষয়ে তাদের আচার-অনুষ্ঠানের বিরোধিতা করা ঈমানের দাবী। অথচ ঈদে-মীলাদ পালনের মাধ্যমে তাদের বিরোধিতা না করে অনুসরণ করা হয়।

১২ ই রবিউল আউয়াল নবী আকরাম সা. এর ইন্তেকাল দিবস। এতে কারো দ্বিমত নেই ও কোন সন্দেহ নেই। এ দিনে মুসলিম উম্মাহ ও সাহাবায়ে কেরাম আল্লাহর রাসূল সা. এর ইন্তেকালের শোকে পাথর হয়ে হয়ে গিয়েছিলেন। এসব জেনে-শুনে ঠিক এ দিনটিতে ঈদ তথা আনন্দ-উৎসব পালন করা চরম বেঈমানী ও নবীর শানে বেয়াদবী ভিন্ন অন্য কিছু হতে পারে না।

মিলাদুন্নবী পালন করে অনেকে মনে করে নবী কারীম সা. এর প্রতি তাদের দায়ীত্ব-কর্তব্য আদায় হয়ে গেছে। তাই তারা রাসূলে কারীম সা. এর সীরাত ও আদর্শের প্রতি কোন খেয়াল রাখেন না। বরং তারা সীরাতুন্নবী নামের শব্দটাও বরদাশ্ত করতে রাজী নয়।
আল্লাহ ও তার রাসূল সা. কর্তৃক নির্ধারিত ইসলামের দু’ঈদের সাথে তৃতীয় আরেকটি ঈদ সংযোজন করা ইসলাম-ধর্ম বিকৃত করার একটা অপচেষ্টা ছাড়া আর কিছু নয়।

তার এই বক্তব্য সাথে সাথে অনলাইনে ভাইরাল হয়ে যায়, কুড়িগ্রাম-রাজারহাট সুন্নী ফেসবুক ব্যবহারকারী ও পবিত্র ঈদে মীলাদুন্নবী পালনকারী অনালাইন এক্টিভিস্টরা এতে প্রতীবাদে সরব হয়ে উঠেন। প্রায় সপ্তাহখানেক এই ব্যপারে কুড়িগ্রাম-রাজারহাট সহ সারা দেশের ঈদে মীলাদুন্নবী পন্থীদের মাঝে তুমুল ক্ষোভ ও সমালোচনার ঝড় উঠে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে অবশেষে ঢাকা রাজারবাগ দরবার শরীফ এর পক্ষ থেকে আইনি নোটিশ প্রেরন করা হয়।

নোটিশ প্রাপ্তিকে ৭(সাত) কার্য দিবসের মধ্যে মিথ্যা বিভ্রান্তিকর বক্তব্য প্রচার করার জন্য ব্যাখ্যা প্রদান চেয়ে এবং উক্ত সময়ের মধ্যে মীলাদুন্নবী পালন করা বিষয়ে উক্ত বক্তব্য সমূহ প্রত্যাহার করার জন্য বলা হয়েছে। অন্যথায় আপনার বিরুদ্ধে আদালতে আইনানুগত ব্যবস্হা নেয়া হবে।

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com