|

বাঘা উপজেলায় পুকুরে ধরা পড়লো বিরল প্রজাতির মাছ

প্রকাশিতঃ ১১:৫০ অপরাহ্ণ | নভেম্বর ২৩, ২০১৮

নাজিম হাসান,রাজশাহী প্রতিনিধি:
রাজশাহীর বাঘা উপজেলার মনিগ্রাম ইউনিয়নের আটঘরি গ্রামের মাছ চাষী রনি সরকারের পুকুরে ধরা পড়েছে বিরল প্রজাতির একটি মাছ। মাছটি নিজে দেখতে চমকপ্রদ মনে হওয়ায় ছবি তোলা হয় মোবাইল ফোনে। উৎসুক জনতা মাছটি নিজে দেখে অন্যকে দেখানোর জন্য মোবাইলে তোলা ছবিটি পার করে নিতে ব্যস্ত।

বৃহস্পতিবার সন্ধায় উপজেলার মনিগ্রাম বাজারে অবস্থিত হোমিও চিকিৎসক মাজিদুল কারিমের চেম্বারের সামনে মাছটির ছবি দেখে মোবাইলে পার করে নেওয়ার হিড়িক। কিন্তু সনাক্ত করতে পারছেনা এই বিরল প্রজাতির মাছটির নাম। এমন দৃশ্যে বাদ পড়েনি মিডিয়া কর্মীও।

জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে নিজের ও অন্যের পুকুর লিজ নিয়ে মাছ চাষ করে আসছেন আটঘরি গ্রামের সূর্য়্য সরকারের ছেলে মাছচাষী রনি সরকার। সে নিজের এলাকা ছাড়াও শশুরের এলাকা নওগাঁ জেলার মান্দা উপজেলাতেও মাছের চাষ করেণ। তিন বছর আগে লিজ নেওয়া একটি পুকুরে গত বৃহস্পতিবার মাছ ধরতে গিয়ে দেশীয় বিভিন্ন প্রজাতির মাছের সাথে জালে উঠে আসে বিরল প্রজাতির এই মাছ। মাছটি দেখতেও চমৎকার আকৃতির এবং বিভিন্ন রঙ্গে রঞ্জিত। এই প্রথম চোখে পড়ে এমন প্রকৃতির মাছ। বিরল মাছটিকে নিয়ে শুরু হয় সেলফি তোলা। অনেকেই ওই মাছটি হাতে নিয়ে ছবিও উঠিয়েছেন।

পরে মাছটি আরো বড় করার জন্য পুকুরে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

মাছচাষী রনি জানান, তার ওই পুকুরে তিন বছর ধরে মাছের চাষ করছেন। কিন্তু কোন দিনই ওই ধরা পড়েনি এমন প্রকৃতির মাছ। হঠাৎ বৃহস্পতিবার জালে উঠে আসে মাছটি। ওই মাছটির গায়ে সুন্দরবনের রয়েল বেঙ্গল টাইগারের মত সারা দেহে ডোরাকাটা দাগ। মাছটির মাথার উপর রয়েছে দুটি চোঁখ।

এর মুখের অবস্থান মাথার একেবারের নিচের অংশে। শুধু তাই নয়, মাছটির দেহ খুবই ধারালো ও কুমিরের মত কঠিন শক্ত, মুখটি দেখতে অনেক খানি কাতল মাছের মতই। কিন্তু নির্ধারণ করতে পারলেন না এটা কি মাছ। তিনি বলেন, এই মাছ কখনো পুকুরে ছাড়াও হয়নি। তবে একবার নদীর পোনা ছেড়েছিলেন ওই পুকুরে। ওই পোনার মধ্যেই হয়তবা ছিল সেই মাছটি।

মাছটি নিয়ে কৌতুহল বসত অনেক প্রবীন ব্যক্তিদেরও দেখানো হয়েছে, তারাও সঠিক কোন নাম বলতে পারেনি। তবে আকৃতি দেখে কেউ বলেছেন হেলিকপ্টর মাছ, কেউ টাইগার ট্যাংরা, আবার কেউ নাম দিয়েছে রকেট মাছ।

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com