|

লক্ষ্মীপুরে মাদ্রাসা ছাত্রকে পিটিয়ে রক্তাক্ত: আরবী শিক্ষক কারাগারে

প্রকাশিতঃ ৯:২৮ অপরাহ্ন | সেপ্টেম্বর ০৫, ২০১৯

লক্ষ্মীপুরে মাদ্রাসা ছাত্রকে পিটিয়ে রক্তাক্ত: আরবী শিক্ষক কারাগারে

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধিঃ লক্ষ্মীপুরে এজাজ রায়হান (১৩) নামে অষ্টম শ্রেণির এক মাদ্রাসা ছাত্রকে পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করার ঘটনায় আরবী শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে শিক্ষক ছায়েদুর রহমানকে আসামি করে আহত ছাত্রের বাবা আরিফ হোসেন সদর মডেল থানায় এ মামলা করেন। পরে বিকেলে তাকে লক্ষ্মীপুর আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

বুধবার (৪ সেপ্টেম্বর) বিকেলে জেলা শহরের উত্তর তেমুহনী এলাকার তানযীমুল মিল্লাত একাডেমি থেকে আটক শিক্ষককে ওই মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।

এরআগে বুধবার বিকেলে এ ঘটনায় রায়হানের ফুফা ও জেলা পরিষদের সদস্য মাহবুবুল হক মাহবুব সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেন। এ প্রেক্ষিতে বিকেলেই পুলিশ পাঠিয়ে ওই শিক্ষককে আটক করা হয়েছিল। একই সময় পাঠদানের অনুমতি না থাকা শর্তেও কার্যক্রম অব্যাহত থাকায় মাদারাসা বন্ধ করে দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন।

আহত ছাত্র রায়হান সদর উপজেলার চররুহিতা ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়াডের প্রবাসী আরিফ হোসেনের ছেলে ও তানযীমুল মিল্লাত একাডেমির ছাত্র। অভিযুক্ত ছায়েদ একই মাদ্রাসার শিক্ষক।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, প্রায় ৫ দিনে জ্বরে আক্রান্ত ছিল রায়হান। সুস্থ হলে বুধবার সে মাদ্রাসায় আসে। মাদ্রাসায় না আসার কারণ জানতে চাইলে শিক্ষক ছায়েদকে জ্বরের কথা জানায়। কিন্তু শিক্ষক তা কর্ণপাত করেননি। শাস্তি হিসেবে কুমড়া চেঙ্গি (পায়ের নিচ দিয়ে কান ধরে রাখা) দিতে বলে। এটা দিতে অস্বীকৃতি জানালে ওই শিক্ষক লাঠি দিয়ে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে তাকে গুরুতর আহত করে। এতে তার হাত-পিঠসহ শরীরের বিভিন্ন অংশে রক্তাক্ত জখম হয়। মাদরাসা শেষে বাসায় ফিরলে রক্তাক্ত জখম অবস্থায় দেখে তাকে সদর হাসপাতালে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়।

জেলা পরিষদের সদস্য মাহবুবুল হক মাহবুব বলেন, ইউএনও’র পরামর্শে আমরা শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা করেছি। আমরা ওই শিক্ষকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।

সদর মডেল থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোসলেহ উদ্দিন বলেন, ছাত্রকে পেটানোর ঘটনায় শিক্ষকের বিরদ্ধে মামলা হয়েছে। বিকালে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শফিকুর রিদোয়ান আরমান শাকিল বলেন, ছাত্রকে পেটানোর ঘটনার অভিভাবককে থানায় মামলা করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া ওই মাদ্রাসায় পাঠদানের কোন অনুমতি নেই। তা শর্তেও তারা পাঠ্য কার্যক্রম চালাচ্ছিল। এজন্য মাদ্রাসার কার্যক্রম বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

দেখা হয়েছে: 30
সর্বাধিক পঠিত
ফেইচবুকে আমরা

  • উপদেষ্টা সম্পাদকঃ আফজাল হোসেন হিমেল মোবাইল ০১৬১১-৫১৫৩২০
  • সম্পাদকঃ আরিফ আহমেদ
  • সহকারী সম্পাদকঃ সৈয়দ তরিকুল্লাহ আশরাফী মোবাইল ০১৯১৬-৯১৭৫৬৪
  • প্রকাশকঃ উবায়দুল্লাহ রুমি মোবাইল ০১৯১৬-২২৩৩৫৬
  • নির্বাহী সম্পাদকঃ মোঃ সবুজ মিয়া মোবাইল ০১৭১৮-৯৭১৩৬০
  • অফিসঃ ১২/২ পশ্চিম রাজারবাগ, বাসাবো, সবুজবাগ, ঢাকা ১২১৪
  • বার্তা বিভাগ মোবাইলঃ ০১৭১৫-৭২৭২৮৮
  • ই-মেইলঃ aporadhbartamofosal@gmail.com
অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।