|

শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

প্রকাশিতঃ ৪:২৫ অপরাহ্ন | জুলাই ০৩, ২০১৯

শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

শরীয়তপুর প্রতিনিধিঃ শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া উপজেলার বিঝারী উপসী তারা প্রসন্ন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নুরুল আমিন রতনের বিরুদ্ধে দায়ের করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। বুধবার (৩ জুলাই) দুপুরে নড়িয়া উপজেলার ভোজেশ্বর বাসস্টান্ডে এ মানববন্ধন করা হয়েছে।

এ সময় বিদ্যালয়ের শিক্ষক আব্দুল কাদের, জাকির হোসেন, মৃদুল কাজি, অভিভাবক শেখ ফজলুর রহমান, নুরুল হক বেপারীসহ শিক্ষক, অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

সুমাইয়া, মৌ আক্তার, অপুসহ শিক্ষার্থীরা বলেন, জেলার শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক রতন স্যার। তার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত ষড়যন্ত্রমূলক ও মিথ্যা হত্যা মামলা অনতিবিলম্বে প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি। মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার না করলে কঠোর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দেন শিক্ষার্থীরা।

এ সময় শিক্ষক ও অভিভাবকরা বলেন, শিক্ষক সমাজের অহংকার। সেই শিক্ষককে যদি মিথ্যা হত্যা মামলায় জড়ানো হয় তাহলে আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থা ভেঙে পড়বে। মামলার কারনে প্রধান শিক্ষক নুরুল আমিন রতন স্কুলে আসতে পারছেন না। শিক্ষার্থীদের লেখা-পড়া ব্যাঘাত ঘটছে। তাই স্যারের বিরুদ্ধে করা ষড়যন্ত্রমূলক ও মিথ্যা হত্যা মামলা অনতিবিলম্বে প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি।

উল্লেখ্য, গত ২৩ জুন শনিবার রাতে যুবলীগ নেতা ও নড়িয়া উপজেলার নশাসন সরদারকান্দি গ্রামের ইমরান হোসেন সরদারকে দুর্বৃত্তরা কুপিয়ে আহত করে। পরে রাত ১টার দিকে তিনি মারা যান। সেই হত্যার ঘটনার মামলায় ২৪ জুন ৪৫ জনকে আসামী করে নড়িয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন নিহত ইমরানের বোন রেশমা আক্তার। সেই মামলার তিন নম্বর আসামী করা হয় শিক্ষক নুরুল আমিন রতনকে।

দেখা হয়েছে: 55
সর্বাধিক পঠিত
ফেইচবুকে আমরা

  • উপদেষ্টা সম্পাদকঃ আফজাল হোসেন হিমেল মোবাইল ০১৬১১-৫১৫৩২০
  • সম্পাদকঃ আরিফ আহমেদ
  • সহকারী সম্পাদকঃ সৈয়দ তরিকুল্লাহ আশরাফী মোবাইল ০১৯১৬-৯১৭৫৬৪
  • প্রকাশকঃ উবায়দুল্লাহ রুমি মোবাইল ০১৯১৬-২২৩৩৫৬
  • নির্বাহী সম্পাদকঃ মোঃ সবুজ মিয়া মোবাইল ০১৭১৮-৯৭১৩৬০
  • অফিসঃ ১২/২ পশ্চিম রাজারবাগ, বাসাবো, সবুজবাগ, ঢাকা ১২১৪
  • বার্তা বিভাগ মোবাইলঃ ০১৭১৫-৭২৭২৮৮
  • ই-মেইলঃ aporadhbartamofosal@gmail.com
অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।