|

সরকারী কলেজের সোয়া ৩একর জমি প্রভাবশালীদের দখলে

প্রকাশিতঃ ১২:২৯ পূর্বাহ্ন | অগাস্ট ০৫, ২০১৯

সরকারী কলেজের সোয়া ৩একর জমি প্রভাবশালীদের দখলে

শিউলী রংপুর থেকেঃ এশিয়া মহাদেশের ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কারমাইকেল কলেজের সাড়ে ৯শ একর জমি নিয়ে বিশাল ক্যাম্পাসের এই কলেজটির প্রায় সোয়া ৩একর জমি আজ অবৈধ প্রভাবশালীদের দখলে । আর সেই জায়গায় তৈরী হচ্ছে বানিজ্যিক ভবন। বিশাল বিশাল অট্রালিকা, মার্কেট, ছাত্রাবাস, ঘরবাড়ি ইত্যাদি।

অন্যদিকে কলেজ প্রশাসন এ ব্যাপারে তেমন কোন গুরত্ব দিয়ে উদ্ধার তৎপরতা বা বেদখল ঠেকানোর দৃশ্যমান কোন উদ্যোগ গ্রহন করতে দেখা যায় নাই।

লক্ষ্য করা গেছে ১৯১৬ইং সালে স্থাপিত এই শিক্ষার ঐতিহ্যের প্রতীক কারমাইকেল কলেজ সাড়ে ৯শ একর বিশাল এলাকা নিয়ে যাত্রা শুরু করে। তার থেকে প্রায় ১শ একর জায়গা নিয়ে গড়ে উঠেছে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়(বেরোবি)। এর পর কলেজের উত্তর পাশের্ব প্রায় সোয়া ৩একর জায়গা লালবাগ হাট সংলগ্ন কলেজ গেইট এলাকায় অবৈধ প্রভাবশালীরা দখল করে নির্মান করেছে বিপনী বিতান। বিলাসবহুল বহুতল বাড়ী, বানিজ্যিক ভবন। ছাত্রাবাস, টিনসেড দোকান খামার, হোটেল, বাসা বাড়িসহ নানা স্থাপনা।

কলেজ প্রশাসনের নাকের ডগার উপর এমনিভাবে দিনের পর দিন কলেজের জায়গা অবৈধ প্রভাবশালীদের দখলে নিয়ে ১১৫টি স্থাপনা তৈরী হয়েছে। অথচ, কলেজ প্রশাসন গুরত্ব না দিয়ে আসায় একের পর এক অবৈধ দখলদারিত্ব বেড়েই চলেছে। আর সেখানে চলছে রমরমা বানিজ্য।

সম্প্রতি কলেজের জায়গা দখল করে বানিজ্যিক ভবন করার পযার্য়ে নিমার্নাধীন ওই ভবনের মালিক আলতাব হোসেনের সঙ্গে সাংবাদিকদের কথা হলে তিনি জানান, আমি বানিজ্যমন্ত্রীর খাস লোক, আমি তার রাজনীতি করি। আপনাদেরকে জমির কাগজ দেখাতে হবে মনে করিনা। শুধু এতটুকু জেনে রাখুন, কলেজ থেকে লিজ নিয়ে কাজ করছি। আপনারা লেখালেখি করতে চাইলে করেন। আমি আমার কাজ শেষ করি। অন্যসব স্থাপনার ভবিষ্যৎ পরিণতি যা হবে আমারও তা হবে।

এদিকে, কারমাইকেল কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. শেখ আনোয়ার হোসেনের সাথে এ বিষয়ে কথা হলে তিনি জানান, আমরা কাউকে ঘরবাড়ি, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান কোন কাজ করতে লিজ দেইনি। আমার সময়ের আগে থেকে কলেজের জায়গা অবৈধ দখলে নিয়ে বিভিন্ন স্থাপনা তৈরী করেছে। আমি আসার পর এসব অবৈধ দখলকারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে মন্ত্রনালয়ের অনুমতি নিয়েছি। আশা করছি শীঘ্রই এর প্রতিফলন ঘটবে।

সাংবাদিকরা কলেজ অধ্যক্ষকে ওই যুবলীগ নেতা আলতাবকে কলেজের জায়গা লিজ দিয়েছেন? এমন প্রশ্নে তিনি জবাব দেন না। তবে তার কাজ কিভাবে চলছে? তিনি বলেন, প্রভাবশালী। আমি বাধা দেয়া সত্বেও মিথ্যা কথা ছড়িয়ে কাজ চালাচ্ছে। আইনী ব্যবস্থার মাধ্যমে আমলে নিতে হবে।

উল্লেখ্য-কলেজ কর্তৃপক্ষ অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের জন্য গত ১৮ জুলাই ২০১৯ইং তারিখে মন্ত্রনালয়ের অনুমতির জন্য আবেদন করেছেন। যার নম্বর ৭০৫১/১৯/২৮।

কলেজের কৃষি কমিটির প্রধান এর সাথে কথা হলে তিনি জানান, আমরা উপ-কমিটি এসব অবৈধ দখল বিষয়ে উচ্ছেদের প্রক্রিয়া শুরু করেছি। দখলকারীদের বিরুদ্ধে উচ্ছেদের মামলা করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য- বিগত ২০ বছরে কলেজের সম্পত্তি ও বিভিন্ন বিষয়ভিত্তিক বিভিন্ন কমিটির কতেক কর্মকতার্,কর্মচারীর যোগসাজস আর কলেজ প্রশাসনের সখ্যতা সম্পর্ক থাকায় অবৈধ দখলকারীদের বিরুদ্ধে যথা সময়ে যথাবিহীত ব্যবস্থা না নেয়ায় আজ প্রায় সোয়া ৩একর জায়গা অবৈধ দখলকারীদের কব্জায়।

দেখা হয়েছে: 60
সর্বাধিক পঠিত
ফেইচবুকে আমরা

  • উপদেষ্টা সম্পাদকঃ আফজাল হোসেন হিমেল মোবাইল ০১৬১১-৫১৫৩২০
  • সম্পাদকঃ আরিফ আহমেদ
  • ভারপ্রাপ্ত সম্পাদকঃ ফয়সাল হাওলাদার মোবাইল ০১৭৩২-৩৭৯৯৮২
  • সহকারী সম্পাদকঃ সৈয়দ তরিকুল্লাহ আশরাফী মোবাইল ০১৯১৬-৯১৭৫৬৪
  • প্রকাশকঃ উবায়দুল্লাহ রুমি মোবাইল ০১৯১৬-২২৩৩৫৬
  • নির্বাহী সম্পাদকঃ মোঃ সবুজ মিয়া মোবাইল ০১৭১৮-৯৭১৩৬০
  • অফিসঃ ১২/২ পশ্চিম রাজারবাগ, বাসাবো, সবুজবাগ, ঢাকা ১২১৪
  • বার্তা বিভাগ মোবাইলঃ ০১৭১৫-৭২৭২৮৮
  • ই-মেইলঃ aporadhbartamofosal@gmail.com
অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের।