|

সিরাজদিখানে পূর্ব শত্রুতার জেরে গুম, ১মাস পর উদ্ধার

প্রকাশিতঃ 9:10 pm | January 10, 2019

মোঃ ফয়সাল হাওলাদার, বিশেষ প্রতিনিধি:

সিরাজদিখানের মধ্যপাড়া ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের গুম হওয়া শাহ্ আলম মৃধা ১ মাস ৩ দিন পর উদ্ধার হয়েছে । উপজেলার মধ্যপাড়া ইউনিয়নের উত্তর মধ্যপাড়া গ্রামে ৫নং ওয়াডের বাশিন্দা শাহ্ আলাম মৃধা।

৪ ডিসেম্বর বিকালে স্থানীয় মেম্বার জাহাঙ্গীর তালুকদার মাগরিব এর নামাজের কথা বলে শাহ্ আলম মৃধা কে ডেকে নিয়ে যায়। নামাজের পর মেম্বারে তার লােক দিয়ে শাহ্ আলম জুতা চুরি করেন। শাহ্ আলম নিজের জুতা না পেয়ে পুড়াতন এক জোড়া জুতা নিয়ে ইছাপুরা বাজারে যায় শাহ আলম ।

তাহার পিছু নেয় মেম্বার। কৈশলে শিউলি বেগমের মেয়েকে দিয়ে লিপি আক্তার (৩০) অজ্ঞাত আরোও কয়েক জন। শাহ্ আলমকে ইছাপুরা আটক করে। কৈশলে সিএনজিতে লিপির সহ যোগীতায় শাহ্ আলম কে অজ্ঞান করে নিয়ে যায়। সরেজমিনে শাহ্ আলমকে দেখতে গেলে তিনি সাংবাদিকদের এই কথা বলেন তিনি ।

শাহ্ আলমের স্ত্রী সাফিয়া জানায়, ১ মাস ৩ দিন পর নারায়নগঞ্জ রেল লাইনে মৃত ভেবে ফেলে যায় মেম্বার বাহিনীর লোক । ঐ এলাকা বাসি ফেসবুকের দিলে সিরাজদিখান থানায়, শাহ্ আলম স্ত্রী সাফিয়া অবগত করেন ঐ খানের ঠিকানা নিয়ে সাফিয়া তাহার স্বামী কে ৭ জানুয়ারী উদ্ধার করেন।

সিরাজদিখান হাসপাতালে তাকে ভর্তি করা হয়। এই ঘটনার বিষয়ে ইউপি মেম্বার জাহাঙ্গীর তালুকদার কাছে মোঠো ফোনে জানতে চাইলে সে বলেন আমি নারায়নগ্জ আছি এখন কথা বলতে পারবো না, এই বিষয়ে মধ্যপাড়া ইউপি, চেয়ারম্যান হাজী
আব্দুল করিম শেখ কে সাংবাদিক ফোন দিয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, শাহ্ আলমের লোকজন আমাকে বিষয় টি যানিয়েছে।

আমি ঢাকা আছি বাড়িতে এসে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নিবো আইনের উদ্বে কেই না বলেন জানান তিনি ।

সিরাজদিখান থানার ওসি (প্রশাসন) ফরিদ উদ্দিন জানান, অজ্ঞাত ৩ জন শাহ্ আলমকে ইছাপুরা থেকে নিয়ে যায়। এর সাথে এলাকার যাদের নাম পাওয়া গেছে তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত সাপেক্ষে বব্যস্থা নেওয়া হবে।