সেক্সের পর যে ৬টি কাজ করা একান্ত জরুরী

যে ৬ টি কাজ যৌন সম্পর্কের পর করা উচিৎযৌন সম্পর্কের পর কী করবেন? বেশীরভাগ মানুষই শারীরিক সম্পর্কের পর পাশ ফিরে ঘুমিয়ে পড়েন, যা একদমই ঠিক নয়। বরং করতে হবে এমন কিছু কাজ যা শরীর ও মন উভয়ের জন্যেই জরুরী।

ভালোবাসায় ভরা যৌনতার কিছু দারুণ মুহূর্ত কাটানোর পর চট করে সেরে ফেলুন এই কাজগুলো, আপনার শরীর ও মন উভয়েই জন্যই জরুরী। সেক্সের পরপরই ঘুমিয়ে না গিয়ে এই ৬ টি কাজ করা একান্ত জরুরী

সেক্স মানেই সব শেষ নয়
অরগাজম হয়ে গেল, এরপর পরস্পরের দিকে পিঠ ফিরে ঘুমিয়ে যেতে হবে? একদম নয়। বরং পরস্পরকে জড়িয়ে ধরে রাখুন। নিজেদের ব্যক্তিগত বিষয়, স্বপ্ন, ভবিষ্যৎ নিয়ে আলাপ আলোচনা করতে পারেন। একসাথে ফিল্ম দেখতে পারেন বা গান শুনতে পারেন। অন্য কিছু না হলে পরস্পরকে জড়িয়ে ধরেই ঘুমিয়ে পড়ুন। এতে সম্পর্ক মজবুত হয়। কারণ যৌনতার সময়ে শরীর অক্সিটসিন হরমোন নিঃসৃত করে যা আমাদের ভালোবাসায় অনুভূতির তীব্রতা বাড়ায়।

বাথরুমে যান
শারীরিক সম্পর্কের পর বাথরুম ব্যবহার না করে ঘুমিয়ে পড়ার চাইতে বাজে অভ্যাস আর হতে পারে না। এটি অত্যন্ত অস্বাস্থ্যকর একটি অভ্যাস। অবশ্যই বাথরুমে যান এবং যৌনাঙ্গ ভালো ভাবে পরিষ্কার করুন। এতে বাড়তি লুব্রিকেন্ট, যে কোন রকমের ব্যাকটেরিয়া ও টক্সিক পদার্থ শরীরে জমে থাকবে না। সময় নিজে নিজেকে পরিষ্কার করুন। কুসুম গরম পানি, মাইল্ড সাবান ও নরম কাপড় ব্যবহার করুন। এছাড়াও শরীরের ঘাম পরিষ্কার করে নিতে ভুলবেন না। এক্ষেত্রে ইসলাম ধর্ম আমাদের শিক্ষা দেয়, যৌন সম্পর্কের পর ফরজ গোসল করতে।

পানি পান করুন
সেক্সের পর এক গ্লাস পানি পান করতে ভুলবেন না। এতে আপনার ক্লান্তি দূর হবে, শরীরে পানির ঘাটতি পূরণ হবে। যৌন সম্পর্কের পর অন্তত ৮ আউন্স পানি অবশ্যই পান করা উচিৎ।

কিছু খেয়ে নিন
যৌন সম্পর্কের পর ক্ষুধা লাগা ব্যতিক্রম কিছু নয়, বরং খুবই স্বাভাবিক। সেক্স অনেকটা ব্যায়ামের মতই, এতেও ক্যালোরি ক্ষয় হচ্ছে। তাই হালকা কিছু খেয়ে নিলে দোষ নেই মোটেও। তিসি বা সূর্যমুখীর বীজ, এক মুঠো বাদাম ও গ্রিন টি, একটি অমলেট ও ফলের রস, ফল ও টক দই ইত্যাদি খাবার খাওয়া যেতে পারে।

নতুন পোশাক পরিধার করুন
যৌন সম্পর্কের সময় যে অন্তর্বাস ব্যবহার করেছেন বা যে পোশাক (যেমন- ট্রাউজার, লুঙ্গি, পেটিকোট) পরিধান করছিলেন, পরেও সেটি পরিধান করবেন না। নিজেকে পরিষ্কার করার পর এক প্রস্থ ফ্রেশ কাপড় পরুন। নিজের কাছে ভালো তো লাগবেই, অন্যদিকে বাসি কাপড় পরিধান মোটেও স্বাস্থ্যকর অভ্যাস নয়। এতে নানান রকমের রোগ-বালাইয়ের সম্ভাবনা বাড়ে। ধর্মও আমাদের এই শিক্ষা দেয়।

ভালবাসুন
সঙ্গীর প্রশংসা করুন, ভালো লাগার কথা প্রকাশ করুন। কেননা অক্সিটোসিন লেভেল উচ্চ থাকার কারণে আমাদের মন দ্রবীভুত অবস্থায় থাকে। দুজনের মাঝে কোন মতবিরোধ থাকলে মিটিয়ে ফেলার এটাই সময়। মন খুলে হাসুন, সম্পর্ক অনেক সুন্দর হয়ে উঠবে।

যৌনতা কোন এক তরফা বিষয় নয়। বরং দুজনের সমান সমান অংশ গ্রহণে যৌনতা হয়ে ওঠে সুন্দর ও উপভোগ্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *